Home ব্যবসায়িক পরামর্শ প্লাস্টিক উত্পাদন ব্যবসা
প্লাস্টিক উত্পাদন ব্যবসা

প্লাস্টিক উত্পাদন ব্যবসা

by Tandava Krishna

প্লাষ্টিক উৎপাদনকারী ব্যবসা কিভাবে স্থাপন করবেন ?

একবিংশ শতাব্দির আধুনিক জিবনযাত্রায় যে সমস্ত উপকরন অপরিহার্য হয়ে উঠেছে, তার মধ্যে প্লাস্টিক হল অন্যতম আলপিনের কৌটো থেকে শুরউ করে বৃহদাকারের গাড়ি পর্যন্ত সমস্ত কিছুই এখন আসে প্লাস্টিকের মোড়কে তাই নতুন ব্যাবসা শুরু করার সময় বর্তমানে প্রচুর উদ্যোক্তা প্লাস্টিক শিল্পকেই বেছে নিচ্ছে এর কারন হিবে বলা যায় যে প্লাস্টিকের ব্যাবসা হল এমন একটি ব্যাবসা যেখানে অত্যন্ত কম সময়ে প্রচুর পরিমানে উৎপাদন করা যায় আর বর্তমানে প্লাস্টিক এর ব্যাভার এতটাই বেশি হয় যে যতই উতপাদন করা হোক না কেন, তা বিক্রয়ের সময়ে কোন সমস্যা হয় না

তবে এত বড় একটি সুবিধা আছে মানেই কিন্ত এই নয় যে আপনি প্লাস্টিকের ব্যাবসা শুরু করলে আপনাকে আর কোনও বিষয়ে চিন্তা করতে হবে না এই কারনে আপনারা ব্যাবসা শুরু করার সময়ে যদি প্লাস্টিক প্রস্তুতকরনের কথা ভাবেন, তবে আপনাকে এই ব্যাবসা বিষয়ক যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করতে হবে এর পর সেই তথ্য বিশ্লেষণ করতে হবে এবং সেই তহ্য অনুযায়ী আপনার ব্যাবসার পরিকল্পনা শুরু করতে হবে

আগেই জেনে নি প্লাষ্টিক এর ধরণ সম্পর্কে কিছু তথ্য 

একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে ২০১৮১৯ সালে সারা পৃথিবীতে প্রায় ১৮ মিলিয়ন মেট্রিক টন প্লাস্টিক ব্যাবহার হয়েছে এবং কিছু বিশেষজ্ঞ মনে করেন যে ২০২১ সালের মধ্যে এই পরিমান ২৫ মিলিয়ন মেট্রিক টন পৌছবে টাই কথা বলাই বাহুল্য যে বরত্মান প্রজন্ম জীবনের প্রতিক্ষেত্রে এই প্লাস্টিক ব্যাবহার করে চলেছে তবে এই সমস্ত প্রকারের প্লাস্টিক যে এক গোত্রের, তা নয় মোটামোটিভাবে প্লাস্টিক ধরনের হয় তাই আপনি যখন প্লাস্টিক উৎপাদনের ব্যাবসা শুরু করবেন, আপনাকে জানতে হবে এবং সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে কন প্রকারের প্লাস্টিক আপনি উৎপাদন করতে ইচ্ছুক এই প্লাস্টিকের প্রকারভেদগুলি নিম্নরূপ

)লো ডেনসিটি পলিইথিলিন

আমরা যে সমস্ত প্লাস্টিকের ব্যাগ, থলে বা মরক ব্যাবহার করি, তার প্রতিটি প্লাস্টিকের এই উপবিভাগে পড়ে এই জাতীয় প্লাস্টিকের উতপাদক বর্তমানে প্রচুর পরিমানে দেখা যায় তাই এই প্রকৃতির প্লাস্টিকের উৎপাদনের ব্যাবসা শুরু করার কথা যদি আপনি ভেবে থাকেন, তবে আপনার এই কথাটা নিয়ে চিন্তা করা উচিত যে বাজারে আপনার প্রতিযোগী কিন্তু সর্বদাই সংখ্যায় বেশি হবে তবে আপনাকে কথাও মনে রাখতে হবে যে এই ধরনের প্লাস্টিকের উপভক্তার সংখ্যাও প্রচুর তাই চাহিদার বাহুল্য সবসময়ে লেগেই থাকবে এই দুটি বিষয় নিয়ে চিন্তা করার পর আপনাকে ঠিক করতে হবে যে আপনি এই ধরনের প্লাস্টিকের উতপাদন করতে চান নাকি অন্য কোনও ধরনের

)হাই ডেনসিটি পলিইথিলিন

এটি হল সাধারণ বা লো ডেনসিটি পলিইথিলিনেরই একটি পুরু প্রকারভেদ এটি সাধারণত ব্যাবহার হয় এক্তু মতা ধরনের প্লাস্টিকের ব্যাগ এবং জলের বোতল জাতীয় দ্রব্য তইরি করতে ছাড়া এই ধরনের প্লাস্টিক দিয়ে বিভিন্ন খেলনা, কৌটো, থালা জাতিয় বিভিন্ন সামগ্রিও তইরি হয় সাধারন বা লো ডেনসিটি পলিইথিলিনের মত না হলেও এই জাতিও প্লাস্টিকের চাহিদাও বাজারে অনেক তাই এই ক্ষেত্রেও উৎপাদনের সময়ে আপনাকে বাজারে থাকা একাধিক প্রতিযোগীর সম্মুখীন হতে হবে যদিও এই সংখ্যা সাধারন পলিইথিলিনের উৎপাদকের সখ্যার কাছে কিছুই না, তবুও এই প্রতিযোগীদের কথা আমাদের স্মরনে রাখতে হবেএবং সেই অনুযায়ী পরিকল্পনা নিতে হবে

)পলিভিনাইল ক্লোরাইড

পলিভিনাইল ক্লোরাইড হল জনসাধারনের ব্যাবহারের জন্য বাজারে উপলব্ধ সবচেয়ে কঠিন শক্তিশালী প্লাস্টিক এই প্লাস্টিকের ব্যাবহার সাধারণত ত্যাঙ্ক পাইপ বা অন্যান শক্ত সামগ্রি প্রস্তুতকার্জে ব্যাবহ্রিত হয় যেহেতু এই ধরনের প্লাস্টিক পূর্ববর্তী দুই প্রকারের মত নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের প্রস্তুতকার্জে ব্যাভ্রিত হয় না, তাই এই প্লাস্টিকের চাহিদা অন্যান দুই প্রকারের থেকে অনেক কম তবে সেই পরিমান নেহাত কম নয় তাই যদি সথিক ব্যাবসায়িক নীতি অনুসরন করা যায় তবে অন্য দুই প্রকারের মত এই ব্যাবসাতেও অনেক উন্নতি করার জায়গা থেকে যায়

এই সমস্ত তথ্য জানার পর, আপনি চিন্তা করে দেখুন যে কন প্রকারের প্লাস্টিক আপনি উতপাদন করতে সক্ষম বা ইচ্ছুক তারপর সেই অনুযায়ী আপনার অপরাজেয় ব্যাবসায়িক নীতি গড়ে তুলে ব্যাবসায় সাফল্য লাভ করুন

প্লাষ্টিক উৎপাদন ব্যবসার পরিকল্পনা 

তবে সুধু মাত্র কোন ধরনের প্লাস্টিকের উতপাদন করতে আপনি ইচ্ছুক তা জানলেই যে আপনি ব্যাবসায় অবতীর্ণ হতে পারবেন তা নয় যেকোনো কাজে নামার আগে সেই বিষয়ে পরিকল্পনা করে নেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং এই একই কথা প্লাস্টিক উৎপাদন ব্যাবসার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য তবে তার আগে আমাদের জানতে হবে যে প্লাস্টিক উতপাদন ব্যাবসা সুরু করতে গেলে আমাদের কি কি পরিকল্পনা করতে হবে

বাঞ্ছিত পন্য

আপনাকে ব্যাবসার সময়ে আগে ভাবতে হবে যে আপনি কন পন্য উতপাদনে ইচ্ছুক এবং এই ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার বাঞ্ছিত পন্য উপরে উল্লেখিত শ্রেণির প্লাস্টিকের মধ্যে থেকেই বেছে নিতে হবে এরপর সেই বাঞ্ছিত পন্যের উৎপাদনের জন্য আপনার মুল কারজকলাপ শুরু করতে হবে

অর্থ

যেকোনো ব্যাবসা শুরু করার সময়ে অর্থ একটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আপনার কাছে থাকা অর্থের পরিমান যদি বেশি হয় তবে আপনার ব্যাবসা শুরু করার কাজ অনেক সহজ হয়ে যাবে তবে তা সবসময়ে সম্ভব হয় না তাই ব্যাবসা শুরু করার আগে নিশ্চিত হয়ে নেওয়া উছিত  যে আপনি কত পরিমান অর্থ এই ব্যাবসার কারনে ব্যয় করতে সক্ষমএবং সেই নির্দিষ্ট অর্থের পরিমান অরথের সাপেক্ষে আপনার ব্যাবসার ক্রিয়াকর্ম শুরু করতে হবে

ফ্যাক্টরি (কারখানা)-

যখন কোনও কিছু উৎপাদনের কথা ভাবা হচ্ছে, তখন সেই পন্য টি উৎপাদন করার জন্য সথিক ব্যাবস্থাপনাসহ একটি বিশেষ জায়গায় প্রয়োজন এই বিশেষ জায়গাটিই হল কারখানা বা ফ্যাক্টরি বা উৎপাদনকক্ষ আর আপনার ব্যাবসার সামগ্রী কোথায় উৎপাদিত হবে তা আপনাকেই ঠিক করতে হবে তাই ব্যাবসা শুরু করার আগে নিজের প্রয়োজনীয় ফ্যাক্টরি বা উৎপাদনকক্ষ কেনা বা ভাড়া নেওয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয়

কাঁচামাল

যেকোনো উৎপাদন ব্যাবস্থায় কাছামালের ভুমিকা অন্যতম এবং এই ঘটনা প্লাস্টিক উৎপাদনের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য প্লাস্টিক উৎপাদনের মুল কাঁচামাল হল বিভিন্ন প্রকারের কেমিক্যাল এবং এই কেমিক্যাল বিভিন্ন প্রকারের প্লাস্টিকের জন্য আলাদা তাই যখন আপনি উৎপাদনের জন্য একটি নির্দিষ্ট ধরনের প্লাস্টিক বেছে নেবেন, তখনই আপনাকে ঠিক করে ফেলতে হবে যে উৎপাদনকার্জে আপনি কোন ধরনের কেমিক্যাল ব্যাবহার করবেন

ক্রেতা

ব্যাবসা শুরু করার আগে আপনার জেনে নেওয়া উছিত যে আপনি যে ধরনের পন্য উতপাদন ক্রছেন, তার মুল ক্রেতা কে বা কারা হবে উদাহরনস্বরুপ বলা যায়, আপনি যদি সাধারন পলিইথিলিন উৎপাদন করেন, তবে আপনার ক্রেতারা মুলত হবে সেই সমস্ত ব্যাক্তি এবন দকান্দাররা যারা নিত্যপ্রজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে ব্যাবসা করেন এবং নিজের ক্রেতাদের সুবিধার জন্য প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যাবহার করেন তবে আপনি যদি পলিভিনাইল চলরাইদ উৎপাদন করেন, আপনার মুল ক্রেতা পরিবরতিত হয়ে হবে হার্ডওয়ার দকানের মালিক এবং ব্যাবসায়িরা

পরিবহন ব্যাবস্থা

আপনি যখন আপনা প্লাস্টিক উৎপাদনের ব্যাবসা শুরু করবেন, তখন আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যে আপনার কারখানায় বা ফ্যাক্টরিতে জেন পরিবহনের সুব্যাবস্থা থাকে এই ব্যাবস্থা কাঁচামাল নিয়ে আসা এবং উৎপাদিত পন্য নিয়ে জাওা উভয় কারনেই প্রয়োজনীয় তাই এই ব্যাবস্থা আপনার প্লাস্টিক উৎপাদনের কারখানায় অপরিহার্য

সংক্ষিপ্ত কিছু বর্ণনা

এই সমস্ত বিশয়গুলির কথা আপনি যদি ভেবে নিয়ে তারপরে ব্যাবসায় অবতীর্ন হন তবে আপনার পথ অনেক সহজ হবে এই বিষয়গুলির উপর ভিত্তি করে আপনাকে একটি সথিক ত্রুটিহীন পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে এবং তারপর আপনি যদি সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী আপনার ব্যাবসায়িক কাজকরমের পরিচালনা করেন, তবে আপনার ব্যাবসায়ে সাফল্য লাভ অনেক সহজ হয়ে যাবে

Related Posts

Leave a Comment