Home ব্যবসায়িক পরামর্শ ডেন্ট অপসারণ ব্যবসা
ডেন্ট অপসারণ ব্যবসা

ডেন্ট অপসারণ ব্যবসা

by Tandava Krishna

কিভাবে গাড়ির ডেন্ট সারানোর ব্যবসা শুরু করবে 

পেইন্টলেস ডেন্ট রিপেয়ার (পিডিআর), যাকে জনপ্রিয়ভাবে পেইন্টলেস ডেন্ট রিমুভেশন বলা হয়, এটি অটোমোবাইলগুলির শরীর থেকে ছোটখাটো ডেন্টগুলি সরিয়ে ফেলার একটি পদ্ধতি। আজকাল এই ব্যবসাটি ব্যবপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। কেনোনা শহরে প্রতিনিয়ত গাড়ির সংখ্যা বেড়েই চলছে এবং তার সাথে বেড়ে চলছে গাড়ির বডিতে স্ক্রাস বাড়ার সংখ্যা। গড়ির সংখ্যা যে হারে বাড়ছে সে হারে কিন্তু গাড়ি সারানোর দোকান বা ডেন্ট সারানোর দোকান বাড়ছে না। অর্থাৎ যারা এই ব্যবসার কাজ করছে তারা মূলত ব্যবসাটি একচেটিয়া ভাবে নিয়ন্ত্রন করছে। সারা বিশ্বের সকল দেশে গাড়ীর রং ঠিক রেখে ডেন্ট সারানোর কাজের প্রচুর চাহিদা। আমাদের ভারতেও এর চাহিদা ব্যপক তাই তুমি চাইলে সহজেই একটা ডেন্ট সারানোর ব্যবসা চালু করে সফল উদ্যক্তা হয়ে যেতে পারো। 

কিভাবে শুরু করবে?

তুমি চাইলে নিজেই রাস্তার ধারে যেখানে বেশ কয়েকটা গাড়ি রাখা যাবে এমন ছোট একটা জায়গায় ব্যবসাটা শুরু করে দিতে পারো। তবে কাজটি যদি তোমার জানা থাকে তবেই একা একা শুরু করবে অন্যথায় তোমাকে ডেন্ট সারানোর কাজ খুব ভালো জানে এমন কর্মী রাখতে হবে। 

প্রশক্ষনের দরকার আছে কি না?

দক্ষতা ছাড়া যে কন কাজই করা কঠিন। তাই ডেন্ট সারানোর ব্যবসা শুরু করার আগে তোমাকে অবশ্যই এই কাজে দক্ষতা ও পারদর্শিতা অর্জন করতে হবে। দক্ষতা অর্জন করার জন্য তুমি যে কোন অটোমোবাইল কারখানা যারা ডেন্ট নিয়ে কাজ করে তাদের সাথে কয়েক মাস বা পুরাপুরি ডেন্ট সারানোর কাজে দক্ষ না হওয়া পর্যন্ত কাজ করতে পারো। এতে করে ভবিষ্যতে তোমার কাস্টমারদের ভালো সেবা প্রদান করতে পারবে। 

ব্যবসার নিবন্ধন দরকার আছে কিনা?

যেকোন ব্যবসার একটি নিবন্ধন প্রয়োজন হয়। সে ক্ষেত্রে তুমি তোমার ডেন্ট সারানোর ব্যবসার জন্য স্থানীয় সরকারের কাছ থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে পারো। এ ছাড়া তোমার আধার কার্ড দিয়ে প্রাথমিকভাবে ব্যবসা চালানো যায়। কিন্তু একসময় তোমাকে ট্রেড লাইসেন্স নিতেই হবে। কারণ ট্রেড লাইসেন্স ছাড়া ব্যবসা পরিচালনা করা সম্ভব হয় না। এছাড়াও তুমি তোমার ব্যবসাটা অনলাইনে নিয়ে যেতে পারো। অনলাইনে নিয়ে গেলে এবং বাসা বাড়িতে গিয়ে সার্ভিস প্রদান করলে কোনরকম ট্রেড লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়বে না। 

কর্মীর দরকার আছে কি না? 

তোমার ব্যবসায় কর্মীর দরকার আছে কিনা বিষয়টি  তুমি ব্যবসাটি কতবড় করে শুরু করতে চাও তার উপরে নির্ভর করছে। ব্যবসাটি বড় হলে এবং তোমার ব্যবসায় যদি গ্রাহক সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়তেই থাকে তবে তোমার কর্মীর দরকার পরবে। তবে এমন ক্ষেত্রে অবশ্যই দক্ষ কর্মী নিয়োগ দিতে হবে। আর কেবল দক্ষ কর্মীই পারে তোমার ব্যবসার সুনাম বৃদ্ধি করতে। এই ব্যবসায়িক সুনাম তোমাকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে ভালো আয় করতে সাহায্য করে। 

ডেন্ট সারানোর কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামাদি কোথায় কিনতে পাবে? 

আজকাল হাতের খুব কাছেই ডেন্ট সারানোর কাজে ব্যবহিত সরঞ্জামাদির দোকান রয়েছে। যারা গাড়ির সরঞ্জামাদি বিক্রি করে থাকে তারাই মূলত এসব পণ্যও বিক্রি করে। তবে তুমি যদি খুব কম দামে সরঞ্জামাদি কিনতে চাও তবে তোমাকে শহরের কোন পাইকারি দোকানের কাছ থেকে কিনতে হবে। এছাড়াও অ্যামাজন, ইন্ডিয়ামার্ট, ট্রেডইন্ডিয়া এর মত বড় বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস ডেন্ট সারানোর কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামাদি বিক্রি করে থাকে। অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে পণ্য কেনার সুবিধা হচ্ছে তারা তোমাকে তোমার জায়গায় এসে পণ্য দিয়ে যায়। তবে দেখে শুনে বুঝে কোন দোকান থেকে নিজে গিয়ে ডেন্ট সারানোর ব্যবসার কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামাদি সবথেকে বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

প্রচার-প্রচারণার দরকার আছে কিনা?

 যে কোন ব্যবসা শুরু করতে হলে প্রচার-প্রচারণার দরকার রয়েছে। সে ক্ষেত্রে তুমি যে এলাকায় ব্যবসাটি শুরু করতে যাচ্ছ সেই এলাকাতে তোমার ডেন্ট সারানোর ব্যবসার জন্য প্রচার প্রচারণা করতে পারো। তুমি যদি শহরে করো তো শহরেই এই ব্যবসার প্রচার প্রচারণা করতে পারো অথবা তোমার ব্যবসাটি যদি ছোট শহরে হয়ে থাকে তাহলে লিফলেট করে যাদের গাড়ি আছে তাদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে লিফলেট বিতরণ করতে পারো। এতে করে তাদের যখনই কোন প্রবলেম হবে তারা তোমার কাছে চলে আসবে। 

আজকাল অনলাইনে ও প্রচার প্রচারণা করা যায় সে ক্ষেত্রে তোমার ডেন্ট সারানোর ব্যবসাটি নামে  একটি ওয়েবসাইট করে তুমি কেমন সেবা দাও এবং কি কি সেবা দাও সে সম্পর্কে গ্রাহককে জানাতে পারো এবং ব্যবসার প্রচার-প্রসারে গ্রাহকদের বিভিন্ন অফারো দিতে পারো। এছাড়াও  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে তোমার ব্যবসার নামে একাউন্ট খুলে বা পেজ খুলে সেখানে বিজ্ঞাপন দিয়ে তুমি তোমার নির্দিষ্ট ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে পারো। 

কেমন পুঁজি বিনিয়োগ করতে হতে পারে?

ডেন্ট সারানোর ব্যবসা খুব অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায়। তবে তোমার নিজস্ব জায়গা থাকে তাহলে ব্যবসার দোকান বা গ্যারেজ ভাড়া বেঁচে যাবে। অন্যথায় তোমাকে গ্যারেজ বা ব্যবসার দোকানের ভাড়া দিতে হবে। ডেন্ট সারানোর জন্য টুলস, গাড়ির ভেদে আলাদা আলাদা রং এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদির দরকার রয়েছে। যার জন্য তোমাকে সর্বোচ্চ এক লক্ষ থেকে দেড় লক্ষ পুঁজি বিনিয়োগ করতে হতে পারে। আবার যে সকল দোকানদারেরা এসব জিনিস বিক্রি করে থাকে তাদের সাথে যদি তোমার ভালো সম্পর্ক থেকে থাকে তাহলে তাদের কাছ থেকে বাঁকিতেও তুমি এগুলো আনতে পারবে। এরপর ব্যবসাটি চালু করে প্রফিট হওয়ার পরে তুমি তাদেরকে বাকি টাকা পরিশোধ করতে পারো।  এমনভাবে বিনা পুঁজিতে তুমি গাড়ির ডেন্ট সারানোর ব্যবসা শুরু করে দিতে পারো। তবে তোমার ব্যবসায় যদি কর্মীর দরকার হয় তবে কর্মীদের বেতনের রুপী দিতে হবে। 

কেমন আয় হয়? 

এই কাজে ভালো চাহিদা রয়েছে। তাই গাড়ির ডেন্ট সারানোর কাজে খুব ভালো মুনাফা অর্জন করা যায়। যেমন ধরো, তোমার খুব ভালো একটা ডেন্ট সারানোর ব্যবসা রয়েছে যেখানে তুমি প্রতিদিন দুই থেকে তিনটা গাড়ির ডেন্ট সরানোর কাজ করো এবং তোমার দুজন কর্মীও রয়েছে। তোমার গ্যারেজ টাও ভাড়া নেওয়া। এখন কর্মীর বেতন, গ্যারেজের ভাড়া, এবং ডেন্ট সারাতে যে সকল প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির প্রয়োজন হয় তার কেনার খরচ বাদ দিয়ে প্রতিমাসে তুমি ৫০ হাজার থেকে থেকে দু লক্ষ রুপি পর্যন্ত আয় করতে পারো। এছাড়াও, তুমি যদি আরও বেশি কাজ করো বেশি হবে আর যদি কম কাজ করো তাহলে ব্যবসায় কম আয় হবে। 

ভারতের বাজারে গাড়ির সংখ্যা দিন দিন যে হারে বাড়ছে তাতে করে ডেন্ট সারানোর ব্যবসায় ভবিষ্যৎ রয়েছে। খুব কম পুঁজি বিনিয়োগ করে ব্যবসার কাস্টমাদেরকে সেরা সেবা প্রদান করে এই ব্যবসায় যে কেউ ভালো করতে পারবে। তাই ডেন্ট সারানোর ব্যবসার এই ভবিষ্যতকে পুঁজি করেই তুমি একজন সফল ব্যবসায়ী হয়ে উঠতে পারো

Related Posts

Leave a Comment