Home ব্যবসায়িক পরামর্শ জিরো ইনভেস্টমেন্ট বিজনেস
জিরো ইনভেস্টমেন্ট বিজনেস

জিরো ইনভেস্টমেন্ট বিজনেস

by Tandava Krishna

কোনো টাকা বিনিয়োগ ছাড়াই যে ব্যবসাগুলি আপনি আজই শুরু করতে পারেন তার একটি তালিকা

ব্যবসা করার ইচ্ছা অনেকেরই থাকে কিন্তু সত্যি কথা বলতে, অর্থের জন্যে অনেকেই পিছিয়ে যান, কিন্তু বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে অর্থের কমতির জন্যে ব্যবসা শুরু করা যাবে না একথা ভাবা এককথায় অমূলক। করোনার প্রকোপের জন্যে অনেকের চাকরির অবস্থা খুব খারাপ, অনেকে কাজ হারিয়েছেন, অনেকে নতুন কাজ খুঁজছেন , আবার অনেকে নতুন ব্যবসা শুরু করার জন্যে চেষ্টা করছেন, কিন্তু সেই ব্যবসা থেকে লাভ হবে না লোকসান হবে এই ভেবে অনেকেই নতুন ব্যাবসায় জমানো অর্থ দিতে ভয় পাচ্ছেন। আমি আজ সেসব সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো যেগুলো কোনো ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই করা যায়, আবার কেউ যদি চান ঘরে বসে ব্যবসা করতে চান তাদেরও নতুন দিনের জন্যে স্বাগত।  আর একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হচ্ছে এখন কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং একটি মোবাইলের সাহায্যে কোনো টাকা খরচ না করেই অনেক রকম ব্যবসা শুরু যায়, সেগুলির কিছু উদাহরণ দেয়া হলো।

কনটেন্ট, ব্লগ রাইটিং বা কোনো বিষয় নিয়ে লেখা

ইংরেজি সম্পর্কে ভাল জ্ঞান থাকলে এবং একটি দুর্দান্ত রচনা শৈলীর সাথে শব্দভাণ্ডার প্রয়োগ আপনার যদি অভ্যাস হয় তাহলে আপনি আপনার ভবিষ্যতের কথা আর বেশি ভাবতে হবে না। লিখতে ভালোবাসলে কোনো টাকা খরচ না করেই মাসে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা লাভ করা যায় আর এই কাজে রিস্কও  নেই। সবার জন্যেই এই কাজ বেশ গ্রহণযোগ্য। ঘুরতে ভালোবাসলে আপনার সেই ভ্রমণ  কাহিনীও ব্লগ হিসাবে বিক্রি করতে পারেন, আবার কোনো ভালো খাবার বা রিসেন্ট দিনের ঘটনা সম্পর্কেও লেখা যায়। বিভিন্ন অঞ্চল সম্পর্কে আপনার আকর্ষণীয় লেখা মানুষের কাছে যত আকর্ষণীয় হবে আপনার লাভের পরিমানও বাড়বে। এখন আমরা গুগলে যে কোনও বিষয়ে জানার জন্যে সার্চ করি সব বয়সের মানুষই এই ব্যাপারে বেশ উৎসাহী। বিষয়গুলি আমাদের জ্ঞানদান এবং আকৃষ্টও করে। কনটেন্ট রাইটিং একটি বড় চাহিদা সম্পন্ন  সম্মানিত পেশাগুলির মধ্যে একটি। আর ফ্রীল্যানসিং কথাটা এখন বেশ শুনতে পাওয়া যায়, কোনো টাকা খরচ না করে  ওয়েবসাইটগুলিতে শুধু একটি বিষয় সম্পর্কে ভাল গবেষণা এবং সেই বিষয়ে ভালভাবে লেখা কন্টেন্ট রাইটিং কাজ হিসাবে পরিচিত। অথবা যে বিষয়টি সম্পর্কে আপনার বেশ জ্ঞান আছে যে ভাষাটিতে আপনি বিশেষজ্ঞ, এটি দিয়ে শুরু করতে পারেন।যারা এই কনটেন্ট রাইটিং দিয়ে লেখান তাদেরও অঞ্চল ভিত্তিক অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের প্রয়োজন হয়।  

অনলাইন পাঠদান / টিউটোরিয়াল

স্কুল ও কলেজগুলি অনেকদিন ধরে বন্ধ থাকায় অভিভাবক এবং প্রবীণ শিক্ষার্থীরা বিষয় বা পাঠ শেখানোর জন্য অনলাইন টিউটরের সন্ধান করছেন। আপনি যদি পড়ানো পেশার সাথে জড়িত থাকেন, পড়াতে ভালোবাসেন বা আপনার কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ের গভীর জ্ঞান থাকে আর সেই বিষয়টিতে ডিগ্রি থাকে , যোগাযোগের দক্ষতা থাকে বা কোনও বিষয়কে আকর্ষণীয় উপায়ে বোঝার ক্ষমতা থাকে অনলাইন শিক্ষাদানের পথটি ভাল পরিমাণ অর্থোপার্জনের জন্য উপযুক্ত বিকল্প হবে।শিক্ষার্থীদের সাথে সংযোগ করতে আপনি কয়েকটি অনলাইন টিউটোরিয়াল সাইটে আবেদন করতে পারেন।  সঙ্গীত, সৃজনশীলতা, যোগব্যায়াম বা রান্না নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য যে কোনো বিষয়ে  আপনি এই অনলাইন টিউটোরিয়াল শুরু করতে পারেন।  আর প্রতি ক্লাস পিছু বেশ কিছু পরিমান অর্থ উপার্জন করাও যায় যেটা আপনি যে কোনো সময় শুরু করতে পারেন।  আর এই দুটি ব্যবসা শুরু করার জন্যে কোনো টাকা পয়সাও দিতে হয় না।  

অনলাইন রিসেলিং ব্যবসা 

রিসেলিং এর অর্থ একটি পোশাক বা যে কোনো পণ্যের আসল দামের উপর নিজের জন্যে কিছুটা মার্জিন রেখে সেটাকে বিক্রি করা , আর এই রকম রিসেলিং ওয়েবসাইটের সংখ্যাও খুব একটা কম নয় , তবে মিসো, শপ ১০১ ভারতবর্ষের এই পুনর্বার বিক্রি ব্যবস্থাকে বেশ সড়গড় করে তুলেছে। আর এই জন্যে শুধু প্রয়োজন নিজের ফোন, একটি ওয়েবসাইট, নিজের ব্যাঙ্ক একাউন্ট আর হোয়াটসআপ নম্বর, কোনো ইনভেস্টমেন্টের দরকার নেই, জিনিস বিক্রি করতে পারলে ইনকাম আর ব্যবসা শুরু করার জন্যে কোনো টেনশনের দরকার নেই , আপনি পুরুষ বা মহিলা যেদিন খুশি এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। গত এক দুই বছরের মধ্যে অনলাইন রিসেলিং ব্যবসা কিরকম জনপ্রিয় হয়েছে তা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট গুলো একটু ঘাটলেই বোঝা যায় , শুধু জামাকাপড়ই নয় জুতো, ব্যাগ , রোজকার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস থেকে বাচ্ছাদের জিনিস, খেলনা সবই অনলাইনে পাওয়া যায়। তবে সবার আগে একটি একাউন্ট ঠিক করতে হবে অনলাইন ট্রানসাকশান এর জন্যে।  

ডেটা এন্ট্রির কাজ

সবচেয়ে সহজ এবং সবচেয়ে সহজ কেরিয়ার বিকল্প হ’ল ডেটা এন্ট্রির কাজ। কোনও বিশেষ ডিগ্রী ছাড়াই আপনি ডেটা এন্ট্রির কাজ করতে পারেন। এটি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ফ্রীতেই পাওয়া যায়। ইনভেস্ট না করে যে ওয়েবসাইট গুলি কাজ দেয় সেগুলির সাথে যোগাযোগ করুন তবে শুরু করার আগে এটির ধারাবাহিকতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন।  কীবোর্ড এবং মাউস এর সহায়তায় কোনও কোম্পানির নেটওয়ার্কে ডেটা সম্পর্কিত তথ্যের আদানপ্রদানের কাজ হ’ল ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের কাজ। তবে উপযুক্ত সময়ের মধ্যে আপনাকে কাজ জমা দেওয়ার ক্ষমতা থাকতে হবে। এটি হাতের লিখিত বা কপি পেস্ট কাজ করা হতে পারে তবে এটি থেকে ভালো আয় করার সুযোগ পাওয়া যায় আবার নিজের সুবিধা মতো কাজও করা যায়। 

ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করা 

আপনার অর্থপার্জনের সেরা এবং সহজ বিকল্প হলো ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করা। মানুষের যা যা প্রয়োজনীয় পরামর্শ বা মজাদার তথ্য, ইউটিউব সমস্ত কিছু সরবরাহ করে। আপনি যদি সরাসরি ক্যামেরার সামনে কাজ করতে ভয় পান তবে আপনার ভয়েস দিয়ে একটি ভিডিও তৈরি করুন বা রান্নার ভিডিওও তৈরী করতে পারেন।  সংগীত নির্ভর ভিডিও বা মোটিভেশনাল ভিডিও গুলোতেও কেবল একজন ভাল বক্তা হয় অর্থাৎ যে কাজে আপনি পারদর্শী সেই বিষয়েই আপনার ভিডিও তৈরী করুন।  সংগীত বা নৃত্য, টেকনোলজি বা শিক্ষাদান থেকে আপনি কোন বিষয়ে  সর্বাধিক আপনার সৃজনশীলতার সাথে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন সচেতন হন কারণ সেখানে প্রতিটি বিকল্প ইতিবাচক চ্যানেল হয়েছে যেগুলির সাথে আপনাকে যুদ্ধে নামতে হবে ,তবে আপনার বিষয় সম্পর্কে প্রথমে নিশ্চিত হন। আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি আপনার চ্যানেলটি খোলার জন্য যথেষ্ট। গ্রাহক বাড়ানোর পরে আপনার চ্যানেল জনপ্রিয় হবে। এবং আকর্ষণীয় ব্লগ আপনাকে ভাল মজুরি উপার্জন করতে সহায়তা করবে। তাহলে এবার একজন ইউটিউবার হওয়ার পথে আপনাকে আর আটকাবে কে?

গ্রাফিক ডিজাইনার 

আপনি যদি মডেলিং পদ্ধতি বা ডিজাইন গুলিতে দক্ষ হন তবে গ্রাফিক ডিজাইন বা ওয়েবসাইট ডিজাইন নিয়ে আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন, কোনো ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই এই ব্যবসা করা যায় এবং  সবচেয়ে বড় ক্যারিয়ারের  এটি সর্বাধিক অন-ডিমান্ড অপসন বলা যেতে পারে। আপনি বিভিন্ন ওয়েব সাইট, ওয়েবপেজ  এবং বিভিন্ন অন্যান্য ছোট বা বড় অনলাইন পেজের সাজসজ্জা সম্পর্কিত ক্রিয়াকলাপ তৈরি করতে পারেন। আপনার সেরা পোর্টফোলিও ই হবে আপনার লক্ষ্য যা অর্জন করলে ভাল উপার্জনের রাস্তা আপনার কাছে খুলে যাবে।

ভাষা অনুবাদকের কাজ 

আপনি যদি একটি বা দুটি ভাষা বা সংস্কৃতি সম্পর্কে বেশি দক্ষ হন তবে একটি ভাষা থেকে অন্য কোনও ভাষা অনুবাদ করে আপনি সহজেই উপার্জন করতে পারেন। আপনি যে ভাষাগুলিতে যথেষ্ট ভাবে বিশেষজ্ঞ, সে সম্পর্কে আপনাকে অবহিত করতে হবে। একজন ভাল অনুবাদক ইংরেজি, হিন্দি, জার্মান, ফরাসি বা চীনা যে কোনো ভাষাতেই কাজ করতে পারে। আপনাকে সেই ভাষাটির উচ্চারণ, ব্যাকরণগত তথ্য নিশ্চিত করতে হবে এবং দ্রুত কাজ করার ক্ষমতা থাকতে হবে।কাজ পাওয়ার জন্যে বিভিন্ন রকম ওয়েবসাইট এর সাহায্য নিতে পারেন এবং সেখানে আপনাকে কোনো ইনভেস্টমেন্ট করতে হবে না , কাজ হয়ে গেলে আপনাকে আপনার প্রদেয় অর্থ দিয়ে দেবে।

আশা করি এই ব্যাবসায়িক পথগুলি কোনো ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই আপনার জীবন গড়তে সাহায্য করবে, আপনিও আপনার জীবনে এগিয়ে যাবেন।  

 

Related Posts

Leave a Comment