Home ব্যবসায়িক পরামর্শ জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর
জিএসটি-এফেক্ট-কিরণ-টোর

জিএসটি এফেক্ট কিরণ স্টোর

by Tandava Krishna

GST কিভাবে আমার ছোট গ্রোসারি শপ (কিরানা শপ ) কে ক্ষতিগ্রস্ত করবে?

কিরানা শপ হলো সেই সব ছোট মুদি সামগ্রীর দোকান , যা পাড়ার মোড়ে দেখা যায়। যেখানেআপনি, আপনার সমস্ত নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী পেয়ে যাবেন খুবই সামান্য দামে , অতিরিক্তকোনো ট্যাক্স বা কর ছাড়াই।

কিন্তু এখন এই সব ছোট দোকান এর মালিকরা সমস্যায় পড়তে চলেছেন জিএসটি নিবন্ধকরণেরদরুন। আমাদের মতো সাধারণ ব্যাবসায়ী যারা আগে কখনো এরকম বড়ো সার্ভিস ট্যাক্স এর কথাশোনেও নি বা দেয় ও নি , তাদের পক্ষে হটাৎ করে এই পরিবর্তন টা খুবই চাপের। বেশিরভাগকিরানা শপ মালিকদের কাছে সার্ভিস এন্ড গুডস ট্যাক্স টা এখনো অস্পষ্ট আর তারকারণেইআগামী দিনে এটি আমাদের মতো ছোট খুচরো ব্যাবসায়ীদের পথের কাটা হতেপারে।আমার মতো আরো কিছু ছোট কিরানা শপ এর মালিক দের বক্তব্য এই যে GST আসার পর তারাহয়তো খুব শিগগিরই ব্যবসা গোটাতে বাধ্য হবে। কারণ এই অনলাইন কেনাকাটার এইপ্রতিযোগিতায় তারা বহুলাংশে পিছিয়ে পরবে।

কি কি ধরণের সমস্যার স্মুখীন হতে পারে ছোট গ্রোসারি ব্যাবসায়ীরা

১) পাইকারি বিক্রেতা বা ব্যবসাদার রা যে কোনো দ্রব্যাদি খুবই কম দামে বিক্রি করে কিন্তুএখন এই সুপার মার্কেট, অনলাইন শপিং এর দৌড়ে এবং এই GST আগমনে তাদের ব্যাবসায়একটা বড়সড় পরিবর্তন আসতে পারে। যারফলে কিছু কিরানা ব্যবসাদার রা এই প্রতিযোগিতারদৌড় থেকে দলছুট হয়েযেতে পারে।
২) এই ধরণের ছোট ব্যাবসায়ীরা বেশিরভাগই স্কুল ফেল বা স্কুল এর গন্ডি না পেরোনো ব্যাক্তি ,যার ফলে তাদের কাছে TIN নম্বর বা ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর না থাকাটাই স্বাভাবিক।এর ফলস্বরূপ তারা আর্থিকভাবে আরো দুর্বল হয়ে পড়ছে।
৩) কিরানা শপ বা ছোট গ্রোসারি শপ এর মালিকদের মধ্যে GST সম্পর্কিত সচেতনতাও অনেককম। বহু এরকম ব্যবসাদার আছেন যারা কিনা এখনো GST জন্য আপিল বা তৈরিই করেন নি।
৪) সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো , GST হওয়ার দরুন সমস্ত ব্যবসা এখন কাগজে কলমে নথিভুক্তমানে, যদি তোমার ব্যবসা সরকারি ভাবে রেজিস্টার্ড না থাকে তাহলে তোমার সাথে কোনোরকমভাবে আর্থিক লেনদেন বা ব্যাবসায়িক লেনদেন করা যাবেনা। যদি কেও এটি অমান্য করে থাকেতাহলে তাকে অতিরিক্ত কর দিতে হতে পারে।
৫) এর মানে এটাই দাঁড়াচ্ছে যে , যে সমস্ত ছোট দোকানদার যারা কিনা এখনো রেজিস্টার্ড নয়,এই ব্যাবসার গন্ডি থেকে ছিটকে যেতে পারে। এমতাবস্থায় বহু ব্যাবসায়ী তাদের জীবিকা নিয়েচিন্তিত। যার কারণেই তারা GST প্রতিবাদ করছে।

৬) কিছু ছোট দোকানদার রা GST জন্য প্রি-ভেরিফিকেশন করিয়েনিয়েছে কিন্তু এখনো তারাকনফিউসড কোন জিনিসের কি বা কতটা দাম রাখবে তা নিয়ে।
৭) এই GST কারণে বহু ছোট ব্যাবসায়ীরা প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সামগ্রী কেনা বন্ধ করে দিয়েছে,কারণ তারা বুঝতেই পারছিনা কোন আইটেম এর কি দাম ফেলবে , কোনটা বাড়বে কোনটা কমবে।
৮) কতটাকার বার্ষিক টার্নওভার হলে সে GST আওতায় পরবে ?
৯) ছোট ক্ষুদ্র বা খুচরো ব্যাবসায়ীদের পক্ষে জেএসটি হিসেব নিকেশ বোঝা আর সেই অনুপাতেক্রয় বিক্রয় করাটা একটা বিরাট ঝুঁকির কারণ।
১০) রেজিস্ট্রেশন নম্বর, যেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে ব্যাবসার ক্ষেত্রে , আর এইরেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি বা এপ্লিকেশন পদ্ধতি আমাদের মতো সাধারণ ছোট ব্যবসাদার দের পক্ষেবোঝা একদমই সম্ভব নয়।

সকল কিরানা শপ মালিকদের চিন্তার কারণ লাভের দিক থেকে একটা বড়সড়
ক্ষতির আশঙ্খা

কিরানা শপ বা ছোট গ্রোসারি শপ এর মালিকদের একটা ছোট ফান্ডা , তারা পাইকারিডিস্ট্রিবিউটর এর থেকে সামগ্রী কেনে ও তাতে নিজেদের লাভের অংক যোগ করে বিক্রি করে।কিন্তু এখন এই GST কারনে তাদের লাভের পরিমানটা অনেকটাই কমে যাওয়ার আশঙ্খা রয়েছে।যখনই গুডস এবং সেলস সার্ভিস ট্যাক্স যুক্ত হবে তখনি শপ মালিকদের লাভের পরিমান কমেযাবে। কারণ আমাদের মতো ছোট দোকানদার দের পক্ষে কখনোই কোনো দ্রব্য বা মাল চড়া দামেবিক্রি করা সম্ভব নয়।

একাউন্টস এর হিসেব বা ট্যাক্স এর হিসেব আমাদের মতো ছোট দোকানদার দের পক্ষে বোঝাখুবই কঠিন, আর সবচেয়ে বড়ো সমস্যা হলো , অনেক হিসেবরক্ষক অভিজ্ঞ ব্যাক্তিদের কাছেইএই GST সংক্রান্ত সঠিক তথ্য নেই। যারফলে তার ও বেশ বিভ্রান্ত এটা নিয়ে, এবং তাদেরবক্তব্য আপাতত অপেক্ষা করা।

এখন প্রশ্ন হল, যেকোনো সামগ্রী কেনার পর তাতে কত শতাংশ মূল্য যুক্ত করলে সেটি লাভেরমুখ ও দেখবে আবার গলা কাটা প্রতিযোগিতার থেকেও বাইরে থাকবে একজন ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী?এই প্রশ্নের উত্তরই এখন ও কারোর কাছে পরিষ্কার না , ফলে বহু কিরানা শপ মালিকেরা কিভাবেতাদের জীবিকা তা বজায় রাখবে সেই নিয়ে আতঙ্কে আছে।

কিছু খুচরো বিক্রেতা GST তে নিবন্ধীকরণ এর জন্য রাজী হয়েছেন

এরকম একটা অনিশ্চতার মধ্যেও কিছু খুচরো ব্যাবসায়ী স্বেচ্ছায় GST তে নিবন্ধকরণের জন্যরাজি হয়েছে। তারা মনে করছেন যে এতে খুব একটা অসুবিধা হবেনা , এবং তারা লাভের পরিমানরেখেই ব্যবসা করতে পারবে।তাদের মতে তারা সরকারের থেকে জিএসটি ইনপুট এর দাবি করতেপারবো।এতে তার খরিদার হারানোর ঝুঁকি কমবে আর চড়া দামে মাল ও বিক্রি করতে হবেনা।যদিও চাটার্ড একাউন্ট এর মতে এখনই এরকম কিছু বলা যাচ্ছেনা।

“সিএআইটি র মহাসচিব এর মতে ,"সাধারণ কিরানা শপ মালিকদের ভয় পাওয়ার
কোনো কারণ নেই “

কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স এর মহাসচিব জানিয়েছেন , যাদের বার্ষিক আয় ২০লক্ষ এর নিচে তাদের GST বা তার ট্যাক্স নিয়ে কোনোরকম চিন্তাভাবনা করার বা ভয় পাওয়ারকোনো দরকার নেই। এমনকি তাদের কাওকেই জিএসটি নম্বর এর জন্য ও আবেদন করার ওপ্রয়োজন নেই।

সুতরাং এখন এটাই প্রকাশ্য যে অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। কারণ কারোর কাছেইGST সংক্রান্ত সঠিক তথ্য নেই , আর সরকার এর তথ্য টুকুও পর্যাপ্ত নয়। তাই, পরিষ্কারতথ্য পাওয়ার জন্য আপাতত আমাদের সকলকেরই আরো কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। আশাকরা যায় , সরকার আমাদের মতো ছোট ব্যাবসায়ীদের কথা ভেবে কিছু একটা সুরাহা বের করবে।

Related Posts

Leave a Comment