Home ব্যবসায়িক পরামর্শ একমাত্র মালিকানা
একমাত্র মালিকানা

একমাত্র মালিকানা

by Tandava Krishna

একমালিকি কারবার কি এবং তার কার্যকারীতা কি?

বর্তমান প্রজন্মে একাধিক তরুন জুবক ও যুবতী প্রথাগত রোজগারের পন্থাগুলি ছেড়ে নিজস্ব ব্যাবসা শুরু করছেন। এদের অনেকেই অর্থের অভাবে সামান্য কিছু লোকবল নিয়ে এই ব্যাবসা শুরু করেন। তারা নিজেদের পরিছিত ব্যাক্তিবর্গ বাবন্ধুবান্ধব্দের মধ্যে থেকে ইচ্ছুক ও উৎসাহী ব্যাক্তিদের সাথে যোগাযোগ করেন এবং তাদের সাথে জউথ ভাবে ব্যাবসা শুরু করেন। তবে তাদের ছাড়াও আর এক ধরনের উদ্যোক্তা দেখা যায় যারা অন্য কারুর সহায়তা না নিয়ে নিজস্ব অর্থবল এবং নিজস্ব পরিশ্রম কে সম্বল করে তাদের ব্যাবসা শুরু করেন। যেহেতু এই ব্যাবসায় সেই ব্যাক্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাক্তি নিযুক্ত থাকে না, তাই এই ব্যাবসার সম্পুর্ন মালিকানা একমাত্র সেই ব্যাক্তির হাতে থাকে। এই ধরনের ব্যাবসাকে একমালিকি কারবার বা সোল প্রপাইতরসিপ বলা হয়।

অধিকাংশ ক্ষেত্রে তারাই একমালিকি কারবারের সূচনা করে যারা তাদের ব্যাবসার অংশীদার হওয়ার জন্য কাউকে একমত করাতে পারে না। এ ছাড়া যারা এই কারবারে আগ্রহি হয়, তারা অধিকাংশই একা কাজ করতে ইচ্ছুক হন নিজে থেকেই। তবে কারন যাই হোক না কেন, বর্তমানে বহু তরুন উদ্যোক্তা এই ধরনের ব্যাবসা শুরু করছেন এবং তা থেকে জিবিকা নির্বাহ করছেন। তাই আপনি যদি একমালিকি কারবার হিসেবে আপনার ব্যাবসার শুরু করতে চান, তবে আপনার এই ধরনের ব্যাবসা সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু তথ্য জেনে নেওয়া দরকার।

একমালিকি কারবার কি?

আপনি জখন কোন নির্দিষ্ট মুল্যের পরিবর্তে কোন এক বিশেষ পন্য বা সেবা অন্য কোন ব্যাক্তিকে বিক্রয় করেন, তবে তাকে ব্যাবসা বা কারবার বলা হয়। তবে এই কারবারে যদি আপনিই একমাত্র মালিক হয়ে থাকেন তবেই তাকে একমালিকি কারবার বলা যাবে। এই কারবারে ব্যাবহ্রিত সমস্ত অর্থ আপনার একারই  হয়, এবং এই কারবার থেকে প্রাপ্ত সমস্ত মুনাফা ও আপনার একারই হয়। আপনি যদি একা সমস্ত পরিশ্রম করতে ইচ্ছুক না হন, তবে আপনি আপনার সাধ্যমত এক বা একাধিক কর্মচারি নিয়োগ করতে পারেন। তবে তাদের আপনি মজুরি প্রদান করবেন, মুনাফা নয়, তাই এই ব্যাবসার সমস্ত কাজ আপনি একা না করলেও মালিকানা আপনার একারই থাকবে। তাই এই ব্যাবসাকেও তখনও একমালিকি কারবার বলা হবে। এই ব্যাবসা শুরু করার জন্য কোন বাধ্যতামুলক রেজিস্ট্রেশান করতে হয় না। তাই অতি সহজেই আপনি এই ধরনের ব্যাবসা শুরু করতে পারেন।

একমালিকি কারবার সংক্রান্ত দু-এক কথা

একমালিকি কারবার যেকোনো রকম ব্যাবসা শুরু করার সবচেয়ে সহজ উপায়। খুব সামান্য কয়েকটি পদক্ষেপ নিলে যেকোনো ব্যাক্তিই অনায়াসে নিজের একমালিকি কারবার শুরু করতে সক্ষম হবে।তাই আসুন জেনে নেওয়া যাক কি এই পদক্ষেপগুলি।

১)পরিকল্পনা-

যেকোনো রকম ব্যাবসা শুরু করার আগেই সেই বিষয়ে যথা সম্ভব পরিকল্পনা করে নেওয়া দরকার। তবে একমালিকি কারবারের ক্ষেত্রে যেহেতু সমস্ত কাজ ও দ্বায়িত্ত আপনার একার উপর থাকে্‌ তাই এই ব্যাবসা শুরু করার আগে আপনাকে এই বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার পরিকল্প[না নিশ্ছিদ্র ও ভুলবিহীন। আপনি যদি নিজে এই ধরনের পরিকল্পনা আগে থেকে করে ফেলতে পারেন, তবে আপনার এই ব্যাবসায় উন্নতি করতে বিশেষ সুবিধা হবে। 

২)অর্থবল-

যেকোনো আকার বা ধরনের ব্যাবসায়েই মূলধন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে অংশীদারি বা আর বড় ব্যাবসায় এই অর্থসংগ্রহের কাজ একাধি ব্যাক্তির মধ্যে বিভাজিত হয়ে যায়। তবে সোল প্রোপাইটরসিপ  বা একমালিকি কারবারে এই সমস্ত কাজগুলি আপনাকে একাই করতে হয়। সেই কারনে আপনার পক্ষে অতিরিক্ত অর্থ সংগ্রহ করা এক্তু কঠিন কাজ হয়ে ওঠে। তাই আপনি যদি কোন একমালিকি কারবার শুরু করতে ইচ্ছুক হন, তবে আপনার উছিত বেশ খানিক্তা অর্থ জমিয়ে নিয়ে তারপর এই উদ্যোগ নেওয়া। তাহলে আপনি ব্যাবসা শুরু করার পর, প্রাথমিকভাবে আপনাকে কোন চরম অর্থসঙ্কটে পড়তে হবে না। এবং তা হলে আপনি সমস্ত মনজগের সাথে আপনার ব্যবসার উন্নতি ও স্রিব্রিদ্ধির জন্য পরিশ্রম করতে পারবেন।

৩)শ্রম-

যেকোনো ব্যাবসা শুরু করতে গেলেই অর্থ  এবং উদ্যোগ এর পাসাপাসি আর যে একটি জিনিস দরকার, তা হল শ্রম। তবে অংশীদারি বা আরও বৃহত্তর খেত্রের ব্যাবসায় এই শ্রম প্রদান করার জন্য বিশাল লোকবল পাওয়া যায়। ত্তবে একমালিকি কারবারে প্রাথমিকভাবে এই বিসাল কাজের বোঝা আপনাকে একাই বহন করতে হত। তাই আপনি যে ধরনের ব্যাবসা শুরু করছেন, আপনাকে আগে দেখে নিতে হবে যে সেই ব্যাবসার উন্নতির জন্য প্রয়োজনীয় শ্রম আপনি দিতে পারবেন কি না।

একমালিকি কারবারের সুবিধা

একমালিকি কারবারের ক্ষেত্রে উদ্যোক্তা এমন কিছু সুবিধা পেয়ে থাকেন যা অন্য কোন ব্যাবসায় তারা পান না। এবং এই সুবিধাগুলির জন্যই একাধিক উদ্যোক্তা এই ব্যাবসায় অংশ নেওয়ার জন্য উৎসাহী হন। তাই আমরা একমালিকি কারবারের ব্যাপারে জানার সময়ে দেখে নেব এই সুবিধাগুলি কি কি।

১)স্বল্প স্থানে ব্যাবসার সূচনা-

একমালিকি কারবার বা সোল প্রোপাইটরসিপ সাধারণত খুবই খুদ্র আকারে ও পরিধিতে তৈরি হয়। তাই আপনি এই ব্যাবসা শুরু করার সময়ে যদি কোন প্রিথন নির্দিষ্ট স্থানের ব্যাবস্থা নাও করতে পারেন, তাহলেও আপনি ইচ্ছে করলে এই ব্যাবসা শুরু করতে পারেন। যেহুতু অধিকাংশ কাজ আপনি একাই করবেন, তাই আপনি আপনার একার কাজ করার জন্য যথেষ্ট যায়গা যোগাড় করলেই আপনার ব্যাবসা শুরু করতে পারবেন।

২)মুনাফার সমতুল্য পারিশ্রমিক-

আপনি যখন একমালিকি কারবার শুরু করেন, তখন অধিকাংশ ক্ষেত্রে আপনি একাই সমস্ত কাজ করে থাকেন। এবং আপনার এই কঠিন পরিশ্রমের কারনেই আপনার ব্যাবসা যাবতীয় মুনাফা অর্জন করে। তবে যেহেতু আপনার ব্যাবসায় মালিক এবং কর্মছারি উভয়ই আপনি, তাই যে অর্থ মুনাফা হিসেবে অর্জিত হয়, তার পুরতাই আপনি পারিস্রমিক হিসেবে পেয়ে যান। যদিও এই কথা সম্পুর্ন রুপে সত্যি হয়না যদি আপনি এক বা একাধিক কর্মচারি নিয়োগ করে থাকেন। তবে আপনি কর্মছারি নিয়োগ করে থাক্লেও, তার পারিশ্রমিক সম্পূর্ণ মুনাফার একটি খুদ্র অংশমাত্র হয়ে থাকে। তাই তাকে পারিশ্রমিক দেওয়ার পরও যে পরিমান মুনাফা অবসিশ্ত থাকে তার পরিমাণ মুল মুনাফার কাছাকাছি হয়ে থাকে।

একমালিকি কারবারের অসুবিধা

একমালিকি কারবারে যেমন একাধিক এমন সুইধা পাওা যায় যা অন্য ব্যাবসায় পাওয়া যায় না, তেমন এই ব্যাবসায় সম্মুখীন হতে হয় এমন কিছু সমস্যার, যা অন্য ব্যাবসায় দেখা যায় না। তাই যখন আপনি এই ধরনের ব্যাবসা শুরু ক্রয়ার কথা ভাবছেন, তখন আপনার এতাও জেনে নেওয়া দরকার যে আপনি কি কি অসুবিধার সম্মুখীন হবেন।

১)লোকবলের অভাব-

বৃহত্তর ব্যাবসার ক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই অনেক লোকবল সংগ্রহ করতে পারেন যারা আপনার সাথে তাল মিলিয়ে কাজ করতে পারবে। তবে একমালিকি কারবারে প্রাথমিকভাবে এই লোকবল সংগ্রহ করা সম্ভব হয়না।

২)দায়ের বোঝা-

এই ধরনের ব্যাবসায় লা মুনাফা হয় তার পুরতাই একমাত্র মালিক অর্থাৎ আপনি নিজে পেয়ে থাকেন। তবে তার পাসাপাসি, যখন এই ব্যাবসায় ক্ষতি দেখা দেয়, তার সমস্ত দায়ও আপনার উপর এসেই পড়ে। 

উপরে একমালিকি কারবারর সম্পর্কে বিস্তারিত আলচনা করা হল। এখানে আমরা জানলাম যে একমালিকি কারবার কি, এবং কিভাবে অত্যন্ত সহজে আপনি এই কারবার প্রতিষ্ঠা করতে পারেন এবং তাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। আমরা তার পাসাপাসি এই ব্যাবসার সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কেও জানতে পারলাম। এইভাবে আমরা একটি সাধারণ ধারন তৈরি করতে পারলাম যে একমালিকি কারবার কি এবং তাকে কিভাবে পরিচালনা করা হয়। এরপর আপনি যদি এই ধরনের ব্যাবসায়ে আগ্রহি থাকেন, তবে আপনাকে এই তথ্যের ভিত্তিতে নিজস্ব ব্যাবসার নক্সাতরি করতে হবে। এই নক্সা যত মজবুত হবে, আপনার ব্যাবসার উন্নতি ও তত তাড়াতাড়ি ও সহজে হবে।

Related Posts

Leave a Comment